আকামা কি? সহজ পদ্ধতিকে আকামা চেক করার নিয়ম

বর্তমানে দেশে সিংহভাগ বৈদাশিক মুদ্রা আয় হয় রেমিট্যান্স যেদ্ধাদের কাছ থেকে। বাংলাদেশী প্রবাসী শ্রমিক না বিশ্বের এমন কোন দেশে নেই। যখন কোন প্রবাসী ভাই ও বোন বিদেশে কাজ করার জন্য চলে যায় তখন সর্বপ্রথম দরকার হয় আকামা বা অনুমতি পত্র। অনুমতি পত্রের আবার বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন নাম হয়ে থাকে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মধ্যে প্রচলিত নাম হয় ওয়ার্ক পারমিট। আবার সৌদি আরবে কাজ করার অনুমতিকে আকামা বলা হয়। এদিকে সংযুক্ত -আবর আমিরাতে বলা হয় পতাকা। মোট কথা কাজের অনুমতি পত্রকেই আকামা বলা হয়

আকামা হারিয়ে গেলে কি করবেন

আকামা নিয়ে আপনাকে সব সময় সতর্ক থাকতে হবে। কোন কারনে যদি আপনার আকামা হারিয়ে যায় তাহলে আপনি প্রতিনিয়ত নানা সমস্যার সম্মুখীন হবেন এবং নানা বিপদে পড়বেন। যদি কোন কারনে আপনার মূল্যবান আকামা হারিয়ে যায় তাহলে কি করবেন তা নিম্নে দেওয়া হল।

আকামার আবেদন

আপনি যে কোম্পানির সাথে চুক্তিবন্ধ হয়েছেন সেই কোম্পানীর কাছে নতুন করে আকামা দেওয়ার জন্য আবেদন করতে হবে। এছাড়া আপনার মালিক কে বিষয়টি জানিয়ে দিন। আপনার মালিক নিজেই আকামার ব্যবস্থা করে দিবে। আপনি নিশ্চয়ই জানেন যে কোম্পানী থেকে যদি আকামা না পান তাহলে ঐ দেশের ভিসা বাতিল হতে পারে । এছাড়াও আপনি যে কোন সময়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর হাতে গ্রেফতার হতে পারেন। তাই আকামা হারিয়ে যাওয়ার সাথে সাথে সংশ্লিষ্ট বিষয়কে আপনি গুরত্বসহকারে নিন।

আকামা দিয়ে পেশা পরিবর্তন

আপনি ধরুন কোন বাড়ির কাজের জন্য আকামা নিয়ে সৌদি আরবে গিয়েছেন। এখন আপনি বাড়ির কাজ করতে ইচ্ছুক না, আপনি আপনার পেশা পরিবর্তন করবেন। একই আকামা দিয়ে আপনি কখনও অন্য কাজ করতে পারবেন না। অনেকেই আকামার সাথে কাজের মিল পাওয়া যায় না। তবে এটা বে-আইনি। তাই আপনি যদি বাসার কাজ ছেড়ে অন্য কোন পেশার সাথে সংযুক্ত হতে চান তাহলে আপনাকে আকামা পরিবর্তন করতে হবে।

আকামার মেয়াদ

কাজের অনুমতি পত্রকে আকামা বলা হয়। আপনি যখন আকামা করবেন ঠিক তখন থেকে সব রকম সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। আপনার আকামার কাগজ সব সময় হাতের কাছে রাখতে হবে। এছাড়া আপনি প্রায় চেক করতে থাকুন আপনার আকামার মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়া নিয়ে। আপনার আকামার মেয়াদ শেষ হলে আপনি আবার আকামার মেয়াদ বৃদ্ধি করতে পারবেন। কিছু বছর আগে আকামার মেয়াদ ছিল ১ বছর করে। এখন সৌদি আকামার মেয়াদ ৫ বছর করা হয়েছে।

আকামার মেয়াদ চেক

আকামার মেয়াদ শেষ হলে আপনাকে নতুন করে আকামার মেয়াদ বৃদ্ধি করতে হবে। ধরুন আপনার আকামা হয়েছে ২০১৫ সালে এখন যদি আপনি আকামার মেয়াদ ২০২০ চেক করতে চান তাহলে আপনি ঘরে বসেই আকামার মেয়াদ চেক করতে পারবেন। এর জন্য থাকতে হবে আপনার একটি এন্ড্রোয়েট মোবাইল ফোন বা পিসি। আপনি সেখান থেকে ঘরে বসে আকামার মেয়াদ চেক করতে পারবেন। কিভাবে ঘরে বসে আকামার মেয়াদ চেক করবেন তার নিয়ম দেওয়া হচ্ছে :

আপনি প্রথমে গুগল প্লে স্টরে যান এর পর এই আ্যাপ টি ডাউনলোড করুন এর পর আপনি ধাপে ধাবে এগুলো পূরন করুন

• সাইন আপ করুন।
• লগ-ইন করুন।
• আকামা চেক করুন।

এছাড়াও আপনি এই আ্যাপ এর মাধ্যমে আপনার নিজের ভিসা চেক করতে পারবেন। আরও অনেক ফিচার পাবেন এই এ্যাপলিকেশন এর মধ্যমে।

ভিসা নাম্বার দিয়ে সৌদি আরবের আকামা চেক

আপনি যদি আ্যাপ এর মাধ্যমে ভিসা চেক করতে সমস্যাবোধ করেন তাহলে আপনি সরাসরি সৌদি আরবের এই ওয়েবসাইট থেকে সরাসরি আকামা চেক করতে পারেন।

আপনি এখানে আকামা চেক করার পাশাপাশি সৌদি আরবের আকামা সমন্ধে আরও বিস্তারিত পড়তে পারবেন। সৌদি আরবে ভিসা নাম্বার দিয়ে আকামা চেক করার কৌশল রয়েছে নানা রকমের। আপনার যে রকমে চেক করতে সুবিধা হয় আপনি ঠিক সেই রকম করে আকামার মেয়াদ চেক করুন।

কুয়েত আকামা চেক করার নিয়ম

আপনি যদি কুয়েত এ কাজ করার জন্য যান তাহলে আপনাকে আকামা নিতে হবে আগেই। তা নাহলে আপনাকে কড়া আইনের সম্মুখীন হতে হবে। আপনি যে কোন সমস্যার সম্মুখীন হলে আপনাকে নিজেই সমাধান করার চেষ্টা করবেন। আপনার কুয়েত আকামা চেক করার জন্য ভিসা নাম্বার দিয়ে চেক করতে পারবেন এছাড়াও রয়েছে অনেক ফিচার।

ভিসা নাম্বার দিয়ে আকামা চেক

আপনার ভিসা হারিয়ে গেলে আপনি খুব সহজেই আপনার ভিসা নাম্বার দিয়ে আপনার আকামার মেয়াদ চেক করতে পারেন। সেই সাথে ভিসার নাম্বার দিয়ে আপনি আরও আপনার সমন্ধে অনেক তথ্য জানতে পারবেন। কুয়েত থেকে যেসব প্রবাসি ভাইয়েরা এখান থেকে সব কিছু দেখতে পারবেন তা হল :

• আপনার নামে মামলা দেখতে পারবেন।
• আপনার নামে কফিলে ইনহাস কেস দেখতে পারবেন।
• আপনার যদি নিজের নামে গাড়ি থাকে তাহলে সেটি তা দেখতে পারবেন।
• ভিসা অনেক রকম হয় যেমন: আকদ হুকুমা, আহলি, খাদেম, মাজরা রায় শোন। আপনি কোন ধরনের ভিসায় আছেন তা সহজে দেখতে পারবেন।
• আপনার নিজের লাইসেন্স এর বিস্তারিত তথ্য সহ সকল কিছু এখানে পাবেন।

 


আকামা যাচাই করার জন্য এবার আপনি আপনার পাসপোর্ট এর ভিতর থেকে রেসেডেন্সি পাতায় চলে যান সেখানে একটি মার্ক করা নাম্বারের জায়গায় দেখতে পাবেন একটি নাম্বার আপনি সেই নাম্বাটি দিয়ে সহজেই আকামা চেক করতে পারবেন।

আমাদের বাংলাদেশ থেকে লক্ষ লক্ষ শ্রমিক ভাইয়েরা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে যাচ্ছেন কাজের জন্য। হয়তো এখানে গিয়ে এসব বিষয়ে কিছুই জানতে পারেন না। কিভাবে আকামা চেক করতে হয় বা কিভাবে আকামার মেয়াদ চেক করতে হয়। তখন বিপাকে পড়তে হয় অনেকের।  এর জন্য আপনি আপনার কাছের কোন প্রবাসী ভাইয়ের কাছ থেকে সহজেই সব কিছু নিয়ম কানুন জেনে নিতে পারেন। আবার অনেক প্রবাসী ভাই আছেন যারা দেশে অনেক টাকা খরচ করে দালালের মাধ্যমে বিভিন্ন দেশে গিয়ে কাজ খুজে না পেয়ে থাকেন। আপনারা এই জন্য বৈধ উপায়ে প্রবাসে চলে যান এবং বৈদাশিক মুদ্রা অর্জন করুন। এছাড়াও সব সময় একটা জিনিস লক্ষ করা যায়।  অনেক প্রবাসি ভাই কোন কাজ না পেয়ে খুবেই হতাশ হয়ে ভেঙ্গে পড়েন। আপনাকে তো কাজ করে নিজের জীবন বাচাতে হবে আগে,  তাই আপনি প্রবাসে কোন কাজ না পেলে প্রবাস থেকে ব্যবসা করতে পারেন অনায়েসে।  এতেকরে আপনি কিছুটা হলেও প্রশান্তি পাবেন এবং নিজেকে স্বাবলম্বী করে গড়ে তুলতে পারবেন। আপনি বিভিন্ন রকম ব্যবসা করে  সবার আগে করে নিজে সচল হওয়ার চেষ্টা করুর এবং এর সাথে আপনি বৈধ পন্থায় কাজ খুজতে থাকুন। দেখবেন একদিন না একদিন ঠিকেই আপনি একটি কাজ পেয়ে গেছেন। আপনি যে কাজটি করুন না কেন সেটা সম্মানের চোখে দেখুন,  পৃথিবীতে কোন কাজেই ছোট নয় এটি মনের মধ্যে দৃঢ় বিশ্বাসের সাথে রাখুন।

এছাড়া আপনার যদি কোন ধরনের সমস্যা হয় তাহলে বাংলাদেশী দূতাবাস এর সাহায্য নিন। আপনাকে তারা সব ধরনের সাহায্য সহযোগিতা করে থাকবে সব সময় এবং সব সময় আপনার ভিসা চেক করুন

বর্তমানে সারা বিশ্বে করোনার ভয়াল থাবা দিচ্ছে। আমার সকল প্রবাসি ভাইদের কাছে আবেদন থাকল আপনি সব সময় নিজেকে সেভ রাখার চেষ্টা করুন। আপনি নিজে রোগমুক্ত ও নিরাপদ থাকলে আপনাদের প্রতিটি পরিবারের সদস্য চিন্তামুক্ত থাকবে। কারন তারা সব সময় আপনার চিন্তায় থাকে, আপনি দুর দেশে কি অবস্থায় ও ঠিক মত আছেন কিনা। আপনি সব সময় সুস্থ থাকুন এই কামনা রইল।

পোস্টটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Comment