জেনে নিন ঘরে বসে টাকা আয় করার সকল উপায়

ঘরে বসে টাকা আয় করা যায় এটা অবাস্তব হলেও সত্য। কিন্তুু আপনি যদি সব কিছু ঠিক ঠিকমত করেন তাহলে আপনি খুব সহজেই ঘরে বসে টাকা আয় করতে পারবেন। বিশেষ করে মেয়েরা অনেক সুন্দর করে ধৈর্যশীল হয়ে একদম ঘরে বসেই রোজগার করতে পারেন। গৃহবধূ হয়ে আপনি ঘরের সব কাজ করে যে সময় কাটাবেন তা নয় আপনি আরও কিছু বাড়তি আয় করুন। ঘরে বসে রোজগার করা টা শুধুমাত্র মেয়েদের জন্য আজ আইডিয়া দিচ্ছি। কারন প্রতিবন্ধী পুরুষ ছাড়া কোন পুরুষ ঘরে বসে রোজগার করে না। তাই আজকের ঘরে বসে ব্যবসা করে রোজগারের আইডিয়াটা সমপূর্ণ মেয়ের জন্য।

আপনার হাতের কাজ করে বিক্রি করুন

ধরুন আপনি অনেক সুন্দর করে পাটের ব্যাগ বানাতে পারেন। আপনার হাতে তৈরি করা ব্যাগ বা ভ্যানিটি ব্যাগের স্বুনাম আছে আপনার পরিবারের মধ্যে। তাহলে বুঝে নিবেন আপনি খুবেই হাতের কাজে পারদর্শী। সেদিন থেকে তৈরি করতে থাকুন সুন্দর সুন্দর ডিজাইনের পাটের ব্যাগ। বিক্রি করার জন্য আপনি প্রথমে আপনার পরিচিত, বন্ধু বান্ধবী বা আত্নীয়র কাছে বিক্রি করতে থাকুন।

তখন দেখবেন আপনার পাটের ব্যাগের পরিচিত পাওয়া শুরু হয়ে গিয়েছে। এখন আর আপনাকে পিছনের দিকে তাকাতে হবে না আপনি একজন সফল উদ্যোক্তা। আপনি আপনার এলাকায় বিক্রি করা ছাড়াও আপনি ফেসবুক, টুইটার ও ইউটিউব এ ভাল মার্কেটিং করে সারাদেশে বিক্রি করতে পারেন। তখন দেখবেন আপনি প্রতিদিন অনেক অর্ডার পাচ্ছেন। সেগুলো আপনি কুরিয়ারের মাধ্যমে বিক্রি করবেন। একদিন দেখা যাবে আপনি শুধু কাজ করতেছেনন না। আপনার উদ্যোগে আরও ৫ থেকে ১০ জন মেয়ের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করে দিতে পেরেছেন।

রান্না করে রোজগার করুন

আপনি নিশ্চয়ই রান্না করা পছন্দ করেন। আর রান্না করা পছন্দটা যদি একটু অন্যরকমভাবে নিয়ে নেন তাহলে আপনি রান্না করে আয় করতে পাারবেন বাট কিভাবে.?
আপনার শহরে অনেক স্টুডেন্টস ও অনেক চাকুরীজীবী লোক বাস করে। তারা সবাই হোটেল এ খায়। বলুন তো কতজন হোটেলে মশলাদার রান্না পছন্দ করে ? সবাই চায় একটু ঘরোয়া পরিবেশের রান্না খাওয়ার। আপনি যেমন রান্না করা খাবার বিক্রি করতে চাচ্ছেন ঠিক তারাও আপনার রান্না করা খাবার খুজছে। শুধু একটু মার্কেটিং এর অভাব। যেহেতু আপনি বিক্রেতা তাই আপনাকেই মার্কেটিং করতে হবে। ভাল করে মার্কেটিং করুন ভাল রান্না করুন আর ৩ বেলা খাবার হোম ডেলিভেরি দেওয়ার পরিকল্পনা করুন দেখবেন আপনাকে আর পিছনে ফিরে তাকাতে হবে না। তাহলে আজ থেকে শুরু করতে পারেন।

টিউশনি করে আয়

আপনি আর একটি পন্থা দেখতে পারেন। সেটি হল টিউশনি করাতে পারেন। আপনার আশে-পাশে
মহল্লার অনেক ছোট ছোট বাচ্ছা রয়েছে। তাদের পিতামাতা অবশ্যই খোজ করে একজন টিউটরের। আপনি সেইসব বাচ্ছাদের টিউশনি করাতে পারেন। একদিকে যেমন আপনার মেধা চর্চা হবে অন্যদিকে ছোট বাচ্ছাদেরও মেধাবিকাশ হবে এছাড়া আপনার পকেটে তো পয়সা আসবেই।

Rebnal Tea

লেখা লেখি করে আয়

আপনার যদি আমার মত লেখা লেখি করার অভ্যাস থাকে তাহলে লেখা লেখির কাজটা শুরু করতে পারেন আজ থেকেই। এর জন্য দরকার আপনার শিক্ষা ও সাধারন মেধা সাথে কিছু গ্রামেটিক্যাল ধারনা। ব্যাস আপনি এখন প্রফেশনাল কন্টেন্ট রাইটার। কন্টেন্ট রাইটারের কাজ পাবেন বিভিন্ন মার্কেটপ্লেস এ। যেখানে অনেক ওয়েব সাইটের স্বত্বাধিকারী ও অনেক কোম্পানী তাদের সাইট এর জন্য কন্টেন কিনে থাকেন। আপনি তাদের কন্টেন দিয়ে আয় করতে পারেন। এছাড়া আপনি নিজে একটি ওয়েবসাইট খুলে লিখতে পারেন। যেখান থেকে আপনার ওয়েবসাইট এ ভিসিটরের মাধ্যমে বিভিন্ন পন্থায় রোজগার করতে পারবেন।

ভিডিও বানিয়ে আয়

আপনি যদি ভিডিও ডিজাইন করার পারদর্শিতা হন তাহলে ভিডিও তৈরি করে ইউটিউব এ আপলোড করে দিতে পারেন। সেটা হোক আপনার রেসেপি কিংবা ব্যবসার আইডিয়া অথবা হতে পারে যে কোন বিষয়ের উপর। তবে আপনার বাচনভঙ্গি ও আপনার সব কিছু ঠিক থাকলে আপনার ইউটিউব এ আপলোড করা ভিডিও দর্শকের মনে লাগবে এবং সবাই দেখবে। তখন আপনি গুগল এ্যাডসেন্স বা ব্যবসার এ্যাড এর মাধ্যমে সারাজীবন ইনকাম করতে পারবেন।

দর্জি থেকে আয়

দর্জি থেকে আপনি অনেক আয় করতে পারেন। এই দর্জি ব্যবসা এমন একটি ব্যবসা যদি আপনার কাজ অনেক ভাল হয় তাহলে আপনি যেমন পাবেন কাজ তেমন পাবেন ইনকাম ও সম্মান। তাই আপনি শুরু করে দিতে পারেন দর্জি ব্যবসা। দর্জি ব্যবসা করার আগে আপনাকে ভাল করে দর্জি বিজ্ঞান শিখে নিতে হবে। তারপর আপনি কিছুদিন ফ্রি কাজ করতে থাকুন আপনার আত্নীয়দের এর পর আপনি দর্জি কাজের মার্কেটিং শুরু করতে পারেন। আস্তে আস্তে দেখবেন আপনার অনেক কাস্টমার হচ্ছে এবং আপনার দর্জির সব কিছু সবার কানে কানে যাচ্ছে। তার থেকে আপনি ভালই কাজ করতে পারতেছেন।

সাজগোজের ও পার্লার দিয়ে আয়

আপনি সাজতে অনেক পছন্দ করেন। তাই সব সময় সাজতে থাকেন। এর জন্য আপনাকে কসমেটিক কিনে আনতে হয়। একবার একটি জিনিস চিন্তা করে দেখুন সেটি হল আপনি যদি আপনার কেনা কসমেটিক দিয়ে অন্যকে সাজিয়ে দিতে পারেন তাহলে আপনি একটি বাড়তি আয় করার সুযোগ পাচ্ছেন। এছাড়া কোন অনুষ্ঠানে বা নতুন বৌকে সাজিয়ে দিয়েও আয় করতে পারেন। এগুলো কাজ শিখতে শিখতে একদিন আপনি একটি বিউটি পার্লারের ব্যবসা দিয়ে দিতে পারেন। আপনি হয়তো জানেন পার্লারের ব্যবসা একটি লাভজনক ব্যবসা। তাই আপনি এই পার্লারের ব্যবসাটি ঘরে থেকে করতে পারেন।

অনলাইনে শাড়ি থ্রিপিছ বিক্রয়

আপনি স্যোসাল মিডিয়ায় বেশ এক্টিভ থাকেন। তাহলে আপনি স্যোসাল মিডিয়াকে কাজে লাগিয়ে ব্যবসা করতে পারেন। আপনি আপনার শহরের কোন দোকান থেকে পণ্যের ছবি তুলুন। এর পর আপনি ফেসবুক পেজ এ আপলোড করুন। তারপর শেয়ার দিয়ে বা ভাল করে বুস্ট মার্কেটিং করে অনলাইনে বিক্রি বাড়াতে থাকুন। এখান থেকে আপনার বাড়তি আয় করার সুযোগ পাবেন। শুধু এর জন্য দরকার হবে আপনাকে আপনার পরিচিত কিছু অফলাইন শাড়ী ও থ্রিপিছ এর দোকান।

তাহলে আপুরা আজ দেখলেন কিভাবে ঘরে বসে টাকা আয় করা যায়। এসবের জন্য বেশি কিছু ইনভেস্ট লাগে না। একটু মেধা খাটিয়ে আপনি এসব ব্যবসা ঘর থেকে করে মাসে হাজার হাজার টাকা আয় করতে পারেন। উপরক্ত ব্যবসা ছাড়া আরও অনেক ব্যবসা রয়েছে আপনি সবগুলো করতে পারেন। আর যদি আপনার কিছু জানার থাকে বা প্রশ্ন থাকে। তাহলে অবশ্যই কমেন্ট করে বলতে পারেন। আজ এ পর্যন্তই.. খোদা হাফেজ।

পোস্টটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Comment