কিভাবে আপনি শুরু করবে বিউটি পার্লারের ব্যবসা

খুবেই সুন্দর একটি আইডিয়া মাথায় আজকে এসেছে সেট হল বিউটি পার্লারের ব্যবসা এর সকল আইডিয়া । যেখানে হাতের কাজের চাহিদা বেশি থাকে। সেখানে যে কোন ব্যবসাই হবে লাভজনক। তবে আজকে আপনাদের আইডিয়া দিবো সেটা হল বিউটি পার্রালের কাজ, বিউটি পার্লার নিয়ে ব্যবসার সব কিছু। তার আগে বিউটি পার্লার নিয়ে কিছু কথা না বললে আমার মুখ খুচ খুচাবে তাই বলে রাখাই ভাল। বিউটি পার্লারের নাম শুনলে কোন মেয়ের মন চাঙ্গা হবে না এমনটা পাওয়া দুস্কর। সবাই চায় নিজেকে সাজাতে । আর মেয়েদের তো এ বিষয়ে কোন তুলনাই হয় না পারলে দিন রাত ২৪ ঘন্টা সেঝে থাকতে চায়। যেন মেয়েদের এটা নিত্য নতুন ফ্যাশন হয়ে গিয়েছে। অনেকেই দিনে একবার থেকে তিনবার বিউটি পার্লারে সাজতেই হবে। সেটা জবের জন্য হোক কিংবা নেশার জন্য হোক। এছাড়া তো অনেক অনুষ্টান বা বিয়ের সময় সাঝতেই হবে। এমন কিছু নিয়ে সাজগোজের ব্যবসা যেন চাহিদা অনেক থাকে। পার্রাল ব্যবসা করতে পারেন আপনিও কারন এখন সব জায়গায় পার্লারের লাভজনক ব্যবসা জমে উঠতেছে। পার্লার ব্যবসা নিয়ে যাবতীয় বিষয় আজ আপনাদের কাছে তুলে ধরব। আশা করব না সেজে আপনি লেখাটি মনযোগ সহকারে পড়ুন।

কেন করবেন বিউটি পার্লারের ব্যবসা

 

আপনি নিজে সাজতে পছন্দ করেন এবং আপনি একজন গৃহিণী। তাই আপনি নিজে সাজার পাশাপাশি অন্যকে সাজিয়ে দিয়ে পয়সা উপার্জন করে নিজের সংসার চালাতে পারেন। এমনকি অনেক মেয়েরা পার্লারের ব্যবসা করে নিজের সংসারের সব কিছু সামাল দেয়। আমার বাড়ির পাশের একটি আপুর এক সময় অনেক অভাবে সংসার চলেছিল, তিনি এখন পার্লারের ব্যবসা করে স্বাবলম্বী হয়ে গিয়েছেন। হয়তো আপনার বাসার পাশে কিংবা আপনার বান্ধবীদের মধ্যে অনেকেই আছে। যারা পার্লার ব্যবসা করে আয় করতেছে।

কোথায় নিবেন পার্লারের ট্রেইনিং

 

আসলে এটা চিন্তার বিষয় যে বিউটি পার্লারের ট্রেইনিং কোথায় দিবেন। আর বিউটি পার্লারের কাজ কোথায় শিখবেন। ঘাবড়ানোর কারন নেই। ইদানিং অনেক দক্ষ বিউটিশিয়ানরা বিউটি পার্লারের জন্য ট্রেইনিং দিয়ে থাকেন। আপনি সেখান থেকে পার্লারের ট্রেইনিং দিয়ে সব কাজ শিখতে পারেন। এর জন্য আপনাকে গুনতে হতে পারে ২ থেকে ৫ হাজার টাকা। এছাড়া আপনার পরিচিত কারো বিউটি পার্লার থাকলে সেখান থেকে শিখতে পারেন টাকা ছাড়াই।


পার্লার দিতে কি কি লাগে

 

আপনি যদি একটি পার্লার দেন তাহলে এইসব জিনিসপত্র আপনাকে লাগবে। মার্কেট এ একটি দোকান, মার্কেটে দোকান না দিলে শহরের ভাল একটা পয়েন্ট এ দোকান নিয়ে অথবা বাসা ভাড়া নিয়ে কাজ করতে পারেন। তবে একটি কথা মনে রাখবেন আপনার পার্লারের কাস্টমার কিন্তুু মেয়ে। আর মেয়েরা যেন আপনার দোকানে অবাধে আসতে পারে সেই দিকে খেয়াল রাখবে।

ডেকোরেশনঃ পার্লার ব্যবসা দিতে গেলে আপনাকে সব থেকে বেশি গুরত্ব দিতে হবে ডেকোরেশনের দিকে। আপনার পার্লারের ডেকোরেশন যত ভাল হবে সব থেকে আপনার পার্লার তত উন্নত বলে বিবেচনা করবে আপনার কাস্টামারেরা। এছাড়া আপনাকে দক্ষ হতে হবে বিউটিশিয়ান হিসেবে।

চেয়ারঃ একটি সহ বেশ কয়েকটি পার্লারের চেয়ার আপনাকে নিতে হবে। ঢাকায় পার্লারের জন্য বিউটি পার্লার চেয়ার পাওয়া যায় যার সর্বনিম্ন মূল্য ৩ হাজার থেকে শুরু করে ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত রয়েছে।
টেবিলঃ আপনাকে রুমের চারদিকে ছোট টেবিল দিতে হবে। আপনি এই টেবিলটি কাঠ দিয়ে বানাতে পারেন অথবা আপনি পার্টেক্স এর কাট দিয়ে বানাতে পারেন। তবে কাঠ দিয়ে বানালে আপনাকে কাঠের উপর পার্টেক্স এর সিরামিক ব্যবহার করতে পারেন। আর টেবিলের মাপ হবে ০.১ ফিট আর লম্বা আপনার রুম অনুযায়ী। এর জন্য আপনাকে খরচ করতে হবে ১০ থেকে ১৫ হাজার টাকা।

গ্লাস ও পানির টেপঃ আপনাকে রুমের ওয়ালে ৩ দিকের ৩ টি থাই গ্লাস লাগাতে হবে। এই গ্লাসটি কোয়ালিটিফুল নিবেন। কারন অনেক কম দামের গ্লাস পাওয়া যায় যেগুলো দেখতে ঘোলাটে ও ঝাপসা হয়। এমনি ৩ দি গ্রালাসের দাম পড়তে পারে ৫ থেকে ১০ হাজার টাকার মত। এরপর আপনাকে কিনতে হবে পানি দিয়ে ওয়াশ করার টেপ। প্রথম অবস্থায় ৩ টি টেপ কিনতে হবে । যার মূল্য পড়তে পারে ৫ থেকে ১০ হাজার টাকা।

Rebnal Tea

পার্লারের কসমেটিকসঃ আপনাকে কিনতে হবে পার্লারের কসমেটিকস। আপনি পার্লারের কসমেটিকস কিনতে পারেন ঢাকা থেকে অথবা নিজের শহর থেকে। ঢাকার চক বাজারে আপনি পার্লারের সব ধরেনের কসমেটিকস পাওয়া যাবে। আর এর জন্য আপনাকে খরচ করতে হবে ১০ হাজার থেকে ৪০ হাজার টাকা পর্যন্ত।

অন্যান্য জিনিসপত্রঃ পার্লার রুমের জন্য আপনাকে কিনতে হবে লাইট, পর্দা, সহ নানা রকম জিনিসপত্র। এছাড়া কিনতে হবে আপনার কাস্টমারের জন্য সোফা। যেন সেখানে বসে ওয়েট করতে পারে। এমনকি সময়ে দেখবেন একজন পার্লার করতে গেছে কিন্তুু সাথে ৩ জনকে নিয়ে গেছে। এর জন্য আপনাকে সেই সোফা নিতেই হবে। এর জন্য আপনাে ব্যয় হতে পারে ৭ থেকে ১২ হাজার টাকা।

এখন আপনি পার্লারের রুম দিলেন, সোফা কিনলেন, ডেকোরেশন করলেন, পার্লারের কসমেটিকস নিলেন এর পর আপনাকে ব্যবসা শুরু করতে হবে। তো আজ থেকে শুরু করবেন পার্লারের কাজ।

কারা আপনার পার্লারের কাস্টমার হবেঃ আপনার পার্লারের কারা কাস্টমার হবে সেটা তো বুঝে গেছেন। এখন আপনি একটু এড দেওয়া শুরু করুন। অনলাইনে মার্কেটিং করুন অফলাইনে মার্কেটিং করুন দেখবেন কাস্টমার আর কাস্টমার আসা শুরু করে দিয়েছে।

পার্লারে কোন কোন কাজ করবেন

আপনি পার্লারে বিভিন্ন কাজ করতে পারেন এর মধ্যে উল্ল্যেখ হলঃ ১. নারীও নাবালেগ বাচ্চাদের চুল কাটা হয়।
২. চুল রং করা। কালো খেজাব লাগানো হয়ে থাকে বয়স লুকানোর জন্য। এছাড়া আরো অন্যান্য কালারও করা হয়।
৩. চুলকে বিভিন্নভাবে সাজানো হয়। ঝুঁটি বাঁধাসহ বিভিন্ন প্রকারের চুলের কাটিং করা হয়ে থাকে।
৪. ফ্যাসিয়াল করা হয়। অর্থাৎ মুখকে পরিস্কার সৌন্দর্যমন্ডিত করার জন্য চেহারায় বিভিন্ন প্রকার ক্রিম মালিশ করা হয়।
৫. হাত-পা মালিশ করা হয়।
৬. ভ্রু চিকণ করা হয়। ৭. হাত পায়ের চুল উপড়ানো হয়।
৮. চেহারার চুল উপড়ানো হয়। অর্থাৎ দাড়ি, গোফ, কপালে ইত্যাদিতে গজানো চুল উপড়ানো হয়ে থাকে।
৯. বধু সাজানো হয়। ইত্যাদি ইত্যাটি।

পার্লারে আরও কিছু ব্যবসাঃ আপনি পার্লারের ব্যবসা করছেন খুবেই ভাল। হয়ত ইতিমধ্যে আপনার ভ্যানিটি ব্যাগ এ লাভ যাচ্ছে। এখন তো আপু মহা খুশি। এই খুশির সময়ে সেইম দোকানে আরও ৩ টি ব্যবসা করতে পারেন যেমনঃ আপনি কসমেটিক এর ব্যবসা করতে পারেন আপনি জানেন মেয়েদের কসমেটিকস এর উপর অনেক চাহিদা। আনি আনকমন কিছু দেশি ও বিদেশি কসমেটিক বিক্রি করতে পারবেন।

আপনি আরও একটি ব্যবসা করতে পারবেন সেটা হল। থ্রিপিছ, শাড়ী, চাকমাদের ড্রেস ও মনিপুড়ি শাড়ি ও থ্রীপিছ। এগুলোর চাহিদা অনেক তাই সহজেই আপনি বিক্রি করতে পারবেন।

৩য় ব্যবসাটি হলো আপনি অবশ্যই এতদিনে ভাল একজন বিউটিশিয়ান হয়ে গিয়েছেন। ইচ্ছে করলে আপনি অন্যদের বিউটি পার্লারের ট্রেইনিং দিয়ে দিতে পারেন। এর জন্য ইচ্ছে করলো কোর্চ করতে পারেন একটি করে ব্যাচ করে। বিউটি পার্লারের ট্রেইনিং করেও আপনি অনেক টাকা ইনকাম করতে পারেন।

উপরক্ত ব্যবসায় ( পার্লারের ব্যবসায়) আপনি আজ থেকে নেমে পড়তে পারেন। এই বিউটি পার্লারের ব্যবসায় কোন রকম ঝুকি নিতে হবে না। আপনার দোকানের লোকেশন যদি ঠিক থাকে তাহলে হাতের কাজ করেই আপনার ইনকাম হবে। এমনকি আপনার ইনকাম হবে তো হবেই আপনার মাধ্যমে আরও দু চারজন কর্মচারীর সংসার ভাল চলবে। আর একটি পার্লারের সর্বনিম্ন ইনভেস্ট করতে হবে দোকানে জামানত ছাড়া ৭০ হাজার থেকে ১ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা পর্যন্ত।

তো আপুরা আজ এ পর্যন্তই। আশাকরি এই পোস্ট পড়ে আপনার বিউটি পার্লারের দোকান সমন্ধে আইডিয়া আসতে পারে। আর যদি আপনার কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে আপনি কমেন্ট করে প্রশ্ন বলতে পারেন। লেখার মধ্যে কোন রকম ভুল ক্রটি হলে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন।

পোস্টটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Comment